1. akfilmmultimedia@gmail.com : admin2020 :
  2. teknafchannel71@gmail.com : teknaf7120 :
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৩:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলীর খোলা চিঠি এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে নতুন আদেশ নাইক্ষ্যংছড়িতে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে মাস্ক হাতে রাস্তায় উপজেলা প্রশাসন টেকনাফে বলৎকারের ঘটনায় থানায় অভিযোগ টেকনাফ কোস্টগার্ডের অভিযানে দেশীয় মদ উদ্ধার। ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ, রাতে মাছ শিকারে সমুদ্রে যাবে টেকনাফের জেলেরা মোহাম্মদ নুর এর জানাযা ও দাপন সম্পন্ন না ফেরার দেশে চলে গেলেন মোহাম্মদ নুর টেকনাফে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী ছবি উপহার দিলেন সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ৭১ সভাপতি সাইফুদ্দীন খালেদ টেকনাফে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে বাড়িতে দু’জনের মৃত্যু! আরো দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

টেকনাফে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যেভাবে সাগরে মাছ আহরণ করছে! নিখোঁজ জেলের সন্ধান মেলেনি 

  • আপডেট সময় : বুধবার, ১৬ জুন, ২০২১
  • ৩৭ বার পড়া হয়েছে
মোঃ আরাফাত সানী , টেকনাফ
কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়া বঙ্গোপসাগরে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরতে গিয়ে বাহারছড়া শামলাপুর ১নং ওয়ার্ডের উত্তর ঘাট হতে ফিরে আসার সময় নৌকা ডুবি ঘটনা ঘটে। এ সময় একজন জেলে নিখোঁজ হয়।
মঙ্গলবার (১৫ জুন) মাছ ধরে ঘাটে ফেরায় সময় উত্তাল সাগরের ঢেউয়ের মধ্যে পড়ে আচারবনিয়া এলকার রোহিঙ্গা সালামত উল্লাহ মাঝি (৩৫) সাগর স্রোতে ভেসে যায়। সে ক্যাম্প-১৬ ব্লক-এ-৫.এর বাসিন্দা বলে জানা যায়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঐ নৌকাতে ৬ মাঝি মাল্লা ছিল। এদের মধ্যে ৫ জন জেলে সাঁতার কেটে উপকূলে চলে আসলেও মাঝি সালামত উল্লাহ প্রচন্ত স্রোতে ঢেউতে ভেসে যায়। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিখোঁজ জেলের সন্ধান মেলেনি।
নৌকা টি উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলা পুর এলাকার আঁচার বনিয়া গ্রামের আবুল কাসেমের ছেলে মোঃ জোবাইর এর বলে জানা যায়।
জেলে ঘাটে কমিটির দায়িত্বে থাকা এক সদস্য প্রতিবেদক কে জানিয়েছেন নিখোঁজ পর থেকে সাগরের বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কিভাবে এসব নৌকা নিয়ে রোহিঙ্গা মাঝি-মাল্লারা কিভাবে সাগরে মাছ শিকারে যায় বলে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।
সূত্রে জানায়,সাগরে ৬৫ দিন মাছ আহরণ ২০ মে হতে বন্ধ শুরু হয়েছে যা আগামী ২৩ আগস্ট পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। এ সময়ে কোন জেলে সরকারি নির্দেশ মাছ আহরণ করতে গেলে তার বিরুদ্ধে আইন গত ব্যবস্তা গ্রহনের জন্য উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ নির্দেশনা ঢিলেঢালা হওয়ায় টেকনাফ উপজেলা ৪৪ টি জেলা ঘাট দিয়ে রাতের বেলায় সাগরে মাছ আহরণ অব্যাহত রয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন জানান। এ ব্যপারে রাতের বেলায় সাগরে মাছ আহরণকৃত কয়েকজন জেলেদের সাথে আলাপ করা হলে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তারা জানান মৎস্য অফিসে কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা দের কর্মকর্তাদের যোগসাজশে মাছ আহরণ করি।
এ বিষয়ে উপজেলা সিঃ মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ দেলোয়ার হোসেন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে,তিনি জানান সাগরে মাছ আহরণ অবস্থা অথবা উপকূল মাছ সংগ্রহের সময় আমি আটক করতে পারি। এছাড়া সাগরে রোহিঙ্গা মাঝি মাল্লা মাছ ধরা সম্পূর্ণ নিষেধ রয়েছে কিন্তু আমার অগোচরে গত দুদিন আগে ৩ নং সংকেত সময় ২ টি নৌকা সাগরে মাছ আহরণ করতে যায়। তমধ্যে একটি চলে আসলেও একটি ডুবে যায়। বলে শামলা পুরের জেলে সমিতির লোকজন আমাকে জানিয়েছেন। গত কাল নৌকা ডুবির ঘটনায় এক জেলে নিখোঁজ রয়েছে আমি জানার পর ঐ নৌকার মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্তা নেওয়ার জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে আলোচনা চলছে।
টেকনাফ কোস্টগার্ড স্টেশান কমান্ডার এর সাথে মুঠোফোন যোগাযোগ করা হলে মোবাইল সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। 

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর