1. akfilmmultimedia@gmail.com : admin2020 :
  2. teknafchannel71@gmail.com : teknaf7120 :
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
টেকনাফের শামলাপুরে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় বাড়ির সকলে দুই সপ্তাহ ধরে অবরুদ্ধ! শিশুশ্রম ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে স্থানীয় সরকার, ধর্মীয় ও শ্রমিক নেতাদের সাথে মতবিনিময় অপহরূত ছাত্রীর ১০দিনেও সন্ধান পায়নি পরিবার! থানায় মামলা, উদ্ধারে কাজ করছে পুলিশ টেকনাফে পুলিশি অভিযানে মিলল ১লক্ষ পিস ইয়াবা টমটম চালক আটক ভাষা শহীদদের প্রতি ফুলদিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন টেকনাফ মডেল থানার পুলিশ মাতৃভাষা অর্জনে জীবন উৎসর্গকারী ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা ও দোয়া জানালেন সাংবাদিক নাছির উদ্দীন রাজ টেকনাফে বিদ্যুতের গ্রিডের জন্য প্রস্তাবিত জমি থেকে মাটি কাটার দায়ে ২লক্ষ টাকা জরিমানা মাদক কারবারির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা! ১০ কোটি টাকার মাদক সহ জাদিমুড়ার খায়রুল বশর আটক ইয়াবা ব্যবসায়িরা কিভাবে তালিকা থেকে বাদ যায়! প্রধানমন্ত্রীকে বলবো- শাহিন বদি

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে অবৈধ জাহাজ নৌ-যান চলাচল বন্ধে হাইকোর্ট রুল

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৯৮ বার পড়া হয়েছে

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন রুটে অবৈধভাবে অনুমোদনবিহীন জাহাজ চলাচল বন্ধে কর্তৃপক্ষের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে চলাচল করা ফিটনেসবিহীন সব জাহাজ ও নৌ-যানের বিষয়ে অনুসন্ধান করে ৯০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নৌপথ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বিআইডব্লিউটিএ-কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্টদের এ আদেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

সোমবার (২৬ নভেম্বর) বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট জোসনা পারভীন।

এর আগে রোববার (২৫ নভেম্বর) কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন রুটে অবৈধভাবে অনুমোদনবিহীন জাহাজ চলাচল বন্ধে হাইকোর্টে রিট করেন রামপুরার বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন চৌধুরী।

 

টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন রুটে অবৈধ জাহাজ চলছে শিরোনামে পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদন সংযুক্ত করে হাইকোর্টে রিট করা হয়।

 

প্রকাশিত প্রতিবেদনের প্রথমাংশে বলা হয়, ‘টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন নৌপথে ঝুঁকি নিয়ে চলছে কয়েকটি জাহাজ। নিয়ম লঙ্ঘন করে এসব জাহাজ চলাচলের কারণে মিয়ানমার সীমানা এলাকায় ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এতে করে ভরা পর্যটন মৌসুমে বিপুল সংখ্যক পর্যটকের প্রাণহানির আশঙ্কা করা হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে এই রুটে চলাচল করার উপযোগী নয় এমন দুটি জাহাজ গত দুই বছর ধরে চলাচল করছে। এসব জাহাজের বেক্রসিং সনদ বা সমুদ্রসীমা অতিক্রম সনদ নেই। এসব জাহাজ নদীপথে চলাচলের অনুমোদন থাকলেও একটি চক্র কমদামে ভাড়া করে অধিক লাভের আশায় বঙ্গোপসাগরের মতো উত্তাল সমুদ্রপথে জাহাজ পরিচালনা করে আসছে।

 

জানা গেছে, নদীতে চলাচলের জন্য তৈরি করা জাহাজ, বিভিন্ন তথ্য গোপন করে একটি অসাধু চক্র বঙ্গোপসাগরের মতো উত্তাল পথে (টেকনাফ- সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে) পর্যটকদের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা থাকা শর্তেও আইনের তোয়াক্কা না করে বিভিন্ন সংস্থাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ জাহাজ পরিচালনা করে আসছে। এসব অবৈধ জাহাজ চলাচলের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা না নিলে যেকোনো মুহূর্তে মিয়ানমার সীমান্তে বড়ধরনের দুর্ঘটনায় পতিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এতে করে কক্সবাজারের পুরো পর্যটন শিল্পের উপর প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর